এই গরমে স্বাস্থ্য ভালো রাখতে লেচু খান বিস্তারিত দেখুন 👇👇👇

স্বাস্থ্য ডেস্ক,বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭: Continue reading “এই গরমে স্বাস্থ্য ভালো রাখতে লেচু খান বিস্তারিত দেখুন 👇👇👇”

Advertisements

মেয়ের ধর্ষণকারীদের সাথে যেভাবে লড়েছিলেন এই সাহসিনী নারী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক , বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭:

নকুবঙ্গা কাম্পি দক্ষিণ আফ্রিকায় পরিচিত হয়ে উঠেছেন একজন ‘লায়ন মামা’ অর্থাৎ ‘সিংহ মা’ হিসেবে। তার মেয়ের তিন ধর্ষণকারীর একজনকে হত্যা এবং বাকি দু’জনকে মেরে আহত করার পর লোকজন তাকে এভাবেই ডাকতে শুরু করে।
এই ঘটনার পর তার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ আনা হয়েছিল কিন্তু জনগণের প্রতিবাদের কারণে তার বিচার বন্ধ করে দিতে হয়েছে।
এর ফলে এখন তিনি তার মেয়ের সেরে ওঠার ব্যাপারে তাকে সাহায্য করার সময় পেয়েছেন।
নকুবঙ্গা কাম্পি কাছে যখন ফোনটা হলো তখন মধ্যরাত। ঘুমিয়ে ছিলেন তিনি।
রাতে বেজে উঠলো ফোন
ফোনের ওপাশে তার মেয়ে সিফোকাজি। নকুবঙ্গার কাছ থেকে ৫০০ মিটার দূরে। সিফোকাজি তার মাকে জানালেন যে তিনজন পুরুষ তাকে ধর্ষণ করেছে এবং তাদেরকে তারা সবাই বেশ ভালো মতোই চেনে।

খবরটা শুনে নকুবঙ্গা প্রথমেই তার মেয়েকে পুলিশের সাথে যোগাযোগ করতে বললেন। কিন্তু ওপাশ থেকে তিনি কোন সাড়া পেলেন না।
মা নকুবঙ্গা জানতেন পুলিশের সাথে যোগাযোগ করা হলেও দক্ষিণ আফ্রিকার ইস্টার্ন কেইপ প্রদেশের প্রত্যন্ত এই গ্রামটিতে পৌঁছাতে তাদের অনেক সময় লাগবে।
সিফোকাজি ভেবেছিলেন এরকম একটা সময়ে সাহায্যের জন্যে হয়তো তার মা-ই একমাত্র আছেন, যিনি এগিয়ে যেতে পারেন।
“আমি খুব ভয় পেয়েছিলাম। কিন্তু আমি যেতে বাধ্য হলাম কারণ সে তো আমারই মেয়ে,” বলেন মা নকুবঙ্গা।
“আমি ভাবছিলাম যখন আমি পৌঁছাবো তখন হয়তো দেখবো সে মরে পড়ে আছে। কারণ সে তো ধর্ষণকারীদের চিনতো।”
“ওই লোকগুলো যেহেতু তাকে চেনে, সে কারণে ওরা নিশ্চয়ই আমার মেযেকে মেরে ফেলতো – যাতে সে ধর্ষণের ব্যাপারে পুলিশের কাছে অভিযোগ করতে না পারে।
গ্রামের বাড়িতে মা নকুবঙ্গা।
সিফোকাজি কয়েকজন বন্ধুর সাথে দেখা করতে ওই গ্রামেরই আরেকটি বাড়িতে গিয়েছিলেন।
তিনি যখন ঘুমিয়ে ছিলেন, তার বন্ধুরা তাকে একা রেখে বাড়ির বাইরে চলে যায়। রাত দেড়টার দিকে আশেপাশের আরেকটি বাড়ি থেকে তিনজন মাতাল পুরুষ এসে তাকে আক্রমণ করে।
ছুরি নিয়ে বের হয়ে গেলেন মা
নকুবঙ্গা যে বাড়িতে থাকেন তাতে বেডরুম ছাড়াও আছে আরো দুটো ঘর। ঘুম থেকে ওঠে তিনি কিচেনে গিয়ে সেখান থেকে একটি ছুরি হাতে নিলেন।
“ছুরিটা আমি নিয়েছিলাম আমার নিজের জন্য। রাতের অন্ধকারে যখন রাস্তা দিয়ে ওই বাড়িতে হেঁটে যাবো, ভেবেছিলাম ওটা আমার জন্যে নিরাপদ হবে না। খুব অন্ধকার ছিল বাইরে। মোবাইল থেকে টর্চের আলো জ্বালিয়ে পথ দেখে দেখে আমাকে যেতে হয়েছিল।”
মা নকুবঙ্গা যখন ওই বাড়ির কাছাকাছি গিয়ে পৌঁছালেন তখন তিনি মেয়ের চিৎকার শুনতে পেলেন।
বাড়িটির বেডরুমে ঢোকার পর মোবাইল ফোনের টর্চের আলোতে তিনি দেখলেন সেই ভয়াবহ দৃশ্য – তার মেয়েকে ধর্ষণ করা হচ্ছে।
“খুব ভয় পেয়ে যাই। কোন রকমে দরজার পাশে দাঁড়িয়েছিলাম। জিজ্ঞেস করলাম তারা ওখানে কী করছে। আমাকে দেখে তারা আমার উপর আক্রমণ চালাতে ছুটে এলো। ঠিক ওই মুহূর্তে আমার নিজেকে বাঁচানোর কথা মনে হয়েছিল।”
তার পর কী কী হয়েছিল নকুবঙ্গা সে বিষয়ে আর বিস্তারিত বলতে চাইলেন না।

২৫ শে বৈশাখের প্রস্তুতি তুঙ্গে বিশ্বভারতীতে

  1. সৌগত মন্ডল,বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭,রামপুরহাট-বীরভূম:

(বোলপুর-বীরভূম ): রাত পেরোলেই বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম দিবস, অথ্যাৎ ২৫ শে বৈশাখ। সারা দেশ ও রাজ্য জুরে সারম্বরে পালিত হয় ২৫ শে বৈশাখ।

আর আপনারা সকলেই জানেন শান্তিনিকেতন-বিশ্বভারতী মানেই বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সকল স্মৃতি রয়ে আছে। বিশ্ব-বরেণ্যের কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম আগামীকাল, আর তারিই
২৫শে বৈশাখের প্রস্তুতি তুঙ্গে, এবছর বিশ্বকবি রবীন্দ্র নাথ ঠাকুরের ১৫৮ তম জন্মবার্ষিকী। সমগ্র বিশ্ব ভারতী জুড়ে চলছে তারই প্রস্তুতি। ২৫ শে বৈশাখ সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে বিশ্ব ভারতী কর্মী মন্ডলের প্রযোজনায় ,পাঠভবন এর ছাত্র-ছাত্রী দের উপস্থাপনা গুরুদেব এর রচনা অবলম্বনে নৃত্যঅভিনয় : মানব কন্যা।

বিশ্ব ভারতীর বাংলা বিভাগের অধ্যাপিকা আলপনা রায় এর গ্রন্থনায় গুরুদেব এর শাপমোচন, চিত্রাঙ্গদা ও চন্ডালিকা এই তিন টি রচনার অংশ বিশেষ নিয়ে তৈরী এই উপস্থাপনা ‘মানব কন্যা’। পাঠভবনের অধ্যাপিকা বোধিরূপা সিংহ এর কথায়- ‘মানুষ মোহের বশবর্তী হয়ে ভুল করে এবং পরে তার থেকে উত্তরণ করে’ এই বার্তায় এই নৃত্যঅভিনয় থেকে দেওয়া হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রী দের। সর্বমোট ৫০ জন ছাত্র-ছাত্রী এই অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করছে। সমগ্র অনুষ্ঠান টিও পরিচালনা করছেন পাঠভবনের ছাত্র-ছাত্রীরা।

আমরা সবাই চৌকিদার দেশ লুটতে দেব না, মোদীর সমর্থনে বলিউড অভিনেতা বিবেক

নিজস্ব প্রতিবেদন,বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭:

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বলিউড অভিনেতা বিবেক ওবেরয় বিজেপির পক্ষ নিয়ে প্রচারে নামলেন। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ভোট দেওয়ার জন্য জনগণের কাছে অনুরোধ করেন। ১২ ই মে দিল্লীর সব ৭ টি আসনে ভোট গ্রহণ। আর তাই সেখানে ভোটের আগে বিবেক ওবেরয় নির্বাচনী প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে জেতানোর জন্য দিল্লীবাসীর কাছে অনুরোধ করেন।

এমনকি তিনি উরি-দা সার্জিক্যাল স্ট্রাইক সিনেমার বিখ্যাত উক্তি, “হাও ইস দা মজোশ” বলে সম্বোধন শুরু করেন। নিজের আঙুলে ভোট প্রদানের চিহ্ন কে দেখিয়ে উনি জনগণকে উৎসাহিত করেন। একই সঙ্গে এদিন তিনি একই বিবেক ওবেরয় বলেন, আমরা সবাই এই দেশের চৌকিদার। আমরা এই দেশকে লুটতে দেব না।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বায়োপিকে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। তবে লোকসভা নির্বাচনের কারণে মোদির বায়োপিক রিলিজে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। অভিযোগ করা হয় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে জনগণকে প্রভাবিত করতে এই ছবিকে নির্বাচনের সময় রিলিজ করানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এমনকি সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত জল গড়ায় ।

সিবিএসে তে ৯৯ শতাংশ নম্বর পেয়ে সারাভারতে পঞ্চম স্থানে কোচবিহারের দিৎসা ঘোষকে অভিনন্দন জানালেন ডাক্তার নির্মল পালিত👇👇👇

নিজস্ব প্রতিনিধি, বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭,কোচবিহার :

CBSE তে 99 শতাংশ নম্বর পেয়ে সারাভারতে পঞ্চম স্থানে আসা দিৎসা ঘোষ আমাদের সারা কোচবিহারের গর্ব ,

কোচবিহার মিশন হাসপাতালের তরফে চেয়ারম্যান মাননীয় ডাঃ নির্মল পালিত মহাশয় দিৎসাকে অভিনন্দন জানালেন, কোচবিহার মিশন হাসপাতাল দিৎসার উজ্জ্বল ভবিষ্যতের প্রার্থনা করে…

কাশ্মীর উপত্যকায় ভোট দিতে আসেনি কেউ জানতে হলে 👇👇👇

ওয়েব ডেস্ক ,বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭:

ভারত ও পাকিস্তানের স্বাধীনতার পর থেকে কাশ্মীর উপত্যকা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে দীর্ঘ সত্তুর বছরের লড়াই।

এরই মধ্যে মাস দুয়েক আগে পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলা হয় বলে জানা যায়।হামলা চালায় কাশ্মীরি এক যুবক নাম আদিল আহমেদ দার।

আদিল আহমেদ দারের আত্মঘাতী হামলায় প্রায় পশ্চাশ জনের মতো ভারতীয় সেনা জওয়ান জীবন হারায়।

তার পর পরিস্থিতি আরও জটিল হয়।সারা দেশে কাশ্মীরিদের উপর অত্যাচার শুরু হয়।সারা দেশে অস্থিরতা সৃষ্টি হয় এবং ভারত ও পাকিস্তানের যুদ্ধের প্রস্তুুতি শুরু হয়েছিল।

সেই কাশ্মীরিদের শাসনভার সরাসরি রাষ্ট্রপতি শাসন জারি ছিল প্রায় বছর ধরে।

লোকসভা নির্বাচনে গতকাল আদিলের গ্রামে ভোট দেয় মাত্র পনেরো জন। পাশ্ববর্তী গ্রামগুলিতে একটিও ভোট পরেনি।

তাই চমকে উঠল গোটা দেশ।প্রশ্ন উঠছে নানা মহলে কেন এমন অবস্থা।জঙ্গিদের ভয়ে ভোট দিতে আসেনি না তারা ভোট বয়কট করেছে সেই প্রশ্নই এখন ঘুরপাক খাচ্ছে সারা দেশে।

সমকামী সন্তানের জন্য নিজের গর্ভে নাতনির জন্ম দিলেন ৬১ বছরের মার্কিন নারী

আন্তর্জাতিক জেলার, বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭:

আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ৬১ বছর বয়সী এক নারী তার গর্ভেই নিজের নাতনিকে জন্ম দিয়েছেন।
সিসিল এলেজ তার সমকামী পুত্র ম্যাথিউ এলেজ এবং তার স্বামী এলিয়ট ডোহার্টির কন্যা সন্তান উমা লুইসের জন্ম দিয়েছেন।
মিসেস এলেজ বলেন তার ছেলে এবং মি. ডোহার্টি যখন তাকে জানায় যে তারা সংসার শুরু করতে চায়, তখন তিনিই তাদের এই প্রস্তাব দেন।
মিসেস এলেজ বলেন দু’বছর আগে তিনি যখন এই প্রস্তাব দেন তখন তার পরিবারের সদস্যরা এটিকে গুরুত্বের সাথে নেয়নি।
“শুরুতে তারা সবাই এই পরিকল্পনা হেসে উড়িয়ে দিয়েছিল।”
কিন্তু পরবর্তীতে মি এলেজ এবং মি. ডোহার্টি যখন সন্তানের বিষয়ে চিন্তা ভাবনা শুরু করেন, তখন একজন চিকিৎসকের পরামর্শে মত পরিবর্তন হয় তাদের।
সারোগেট মা হওয়ার জন্য মিসেস এলেজের একটি ইন্টারভিউ নেয়া হয় এবং অনেকগুলো পরীক্ষা করা হয়।
প্রক্রিয়ায় মি. এলেজ শুক্রাণু প্রদান করেন এবং ডিম্বাণু সংগ্রহ করা হয় মি. ডোহার্টির বোন লেয়া’র কাছ থেকে।

মি ডোহার্টির বোন এবং ডিম্বাণু দান করা লেয়া ইরিবে (বামে), মি ডোহার্টি, মিসেস এলেজ এবং মি. এলেজ (ডানে)
নরসুন্দরের কাজ করা মি. ডোহার্টি বলেন সাধারণ যুগলদের জন্য আইভিএফ বা তৃতীয় একজন প্রতিনিধির মাধ্যমে সন্তান জন্ম দেয়ার চিন্তা করা সাধারণত অনেকগুলো পছন্দের শেষ পছন্দ হলেও তাদের মত সমকামী যুগলের জন্য নিজেদের সন্তান পাওয়ার এটিই ‘একমাত্র আশা।’
স্কুলশিক্ষক মি. এলেজ বলেন, “আমার সবসময়ই জানতাম নিজেদের সন্তান চাইলে আমাদের ভিন্নধর্মী কিছু ভাবতে হবে।”
অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর মিসেস এলেজের অধিকাংশ অভিজ্ঞতা ইতিবাচকই ছিল বলে জানান তিনি।
তবে মি. এলেজের অন্য দুই ভাইবোন শুরুতে তাদের মা’র গর্ভবতী হওয়ার খবর শুনে কিছুটা চমকে গিয়েছিল বলে জানান মিসেস এলেজ।
“সবাই যখন পুরো বিষয়টি জানতে পারে তখন থেকে আমাকে সর্বোচ্চ সমর্থন করে এসেছে তারা।”
তবে এই ঘটনার ফলে নেব্রাস্কায় এলজিবিটি সম্প্রদায়ের সাথে হওয়া বৈষম্যমূলক আচরণের বিষয়টি অনেকটাই প্রকাশিত হয়েছে।

ফণীর তাণ্ডবে বিধস্ত উড়িষ্যা সরকারের পাশে দাঁড়ালেন কোচবিহারের এক সেচ্ছাসেবী সংস্থা

বাপি মন্ডল ,বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭,কোচবিহার : Continue reading “ফণীর তাণ্ডবে বিধস্ত উড়িষ্যা সরকারের পাশে দাঁড়ালেন কোচবিহারের এক সেচ্ছাসেবী সংস্থা”

অক্ষয় তৃতীয়ায় ভিড় নন্দিকেশ্বরী তলায়

সৌগত মন্ডল,বেঙ্গল নিউজ ২৪x৭,
রামপুরহাট-বীরভূম:

(সাঁইথিয়া-বীরভূম): আজ অক্ষয় তৃতীয়া।
শুভ অক্ষয় তিথির জন্য সাঁইথিয়ার সতীপীঠ(নন্দিকেশ্বরী তলায়) দেশবাসী ও রাজ্যবাসীর সুকামনার জন্য, এক বিরাট মহাযজ্ঞ এর আয়োজন করা হয়েছে।ভোর ৪টে থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত চলে। সাথে সাথে প্রচুর ভক্ত লাইন দাড়িয়ে মায়ের পুজো দেয়। সকাল থেকেই প্রচুর ভক্ত আসেন মূলত মহাযজ্ঞ দেখার জন্য। অনেক ব্যাবসায়ী তাদের নতুন হাল-খাতার পূজো করান। একই সঙ্গে কিচ্ছু সেচ্ছাসেবক মহিলা আগত ভক্তদের জলযোগ করায়। প্রচুর ভক্তের সমাগম হয়। সব মিলিয়ে আজ একটি অন্য রূপ দেখাগেছিল সাঁইথিয়ার নন্দিকেশ্বরী তলা মায়ের মন্দির।

মাহে রমজানে কীভাবে শরীর স্বাস্থ্য ঠিক রাখবেন জানতে হলে

নিজস্ব প্রতিনিধি, বেঙ্গল নিউজ২৪x৭:

সোমবার চাঁদ দেখা গেলে মঙ্গলবার থেকেই রমজান শুরু হয়ে যাচ্ছে। রোজার সময়টায় সারা বিশ্বের মুসলমানরা সেহরি থেকে ইফতারি পর্যন্ত না খেয়ে থাকবেন।
ফলে যারা রোজা রাখেন, তাদের খাবারের সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দৈনন্দিন লাইফ স্টাইলেও পরিবর্তন আসবে, যার মধ্যে রয়েছে ব্যায়ামের মতো জরুরি বিষয়।
সারা দিন কোন খাবার বা পানি না খেয়ে ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা নেয়ার প্রয়োজন রয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা বলছেন। তার ওপর এবার রমজান হচ্ছে গরমের সময়ে, ফলে এখানেও দরকার বাড়তি সতর্কতা।
যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ড. রাঞ্জ সিং বলেছেন, এ সময় তিনটি বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। তা হলো, এই সময়ে খাবার ও পানির বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেয়ার পাশাপাশি হালকা ব্যায়াম করতে হবে এবং যতটা বেশি সময় সম্ভব বিশ্রামে থাকতে হবে।
ঢাকার কলাবাগানের বাসিন্দা নাজমা আক্তার বলছেন, ”আমাকে খুব সকালে ঘুম থেকে উঠে রান্না বান্না করতে হয়, এরপর নামাজ পড়ি। এক ঘণ্টা বিশ্রামের পর বাচ্চাদের নিয়ে স্কুলে যেতে হয়। এরপর সারাদিন বাসায় অনেক কাজ থাকে। বাচ্চাদের আবার স্কুল থেকেও আনতে হয়। বিকেলে আবার ইফতারির প্রস্তুতি থাকে।”
”ফলে অন্যান্য সময়ে সকালে বাইরে একটু হাঁটতে গেলেও এখন সেটাও হয় না। রোজা রেখে সারাদিন এতসব করে এমনিতেই খুব ক্লান্ত হয়ে থাকি।” তিনি বলছেন।
ধানমন্ডির বাসিন্দা ইব্রাহিম মুন্সী প্রতিদিন সকালে অথবা বিকালে এক ঘণ্টা করে হাঁটেন। তবে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, রোজা শুরু হলে সময় পরিবর্তন করে সন্ধ্যার পরে অথবা রাতের খাবারের পর হাঁটতে শুরু করবেন।
আরো পড়ুন:
একমাস রোজা রাখলে যা ঘটে আপনার শরীরে
বাংলাদেশে রোজা পালনকারীর জন্য জরুরী ১১টি পরামর্শ
ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য রোজার ৬টি জরুরি পরামর্শ
ভারী ব্যায়ামের তুলনায় ইয়োগা এবং হালকা ব্যায়ামের পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা
রোজায় ব্যায়ামের ব্যাপারে যা বলছেন বিশেষজ্ঞরা
ঢাকার ইয়াসমিন করাচিওয়ালা’স বডি ইমেজের প্রশিক্ষক সুরঞ্জিত দে বলছেন, ”রমজানের সময় ইফতারির অন্তত এক ঘণ্টা পরে ব্যায়াম করা উচিত।”
”বেশি কষ্ট করতে হয় না বা লাফঝাঁপ করতে হয় না, সেরকম ব্যায়াম করতে হবে। বিশেষ করে পেটের মাসলের, হাতের বা পায়ের ব্যায়াম করা যেতে পারে। যারা ডায়াবেটিস বা নিয়মিত কাজের অংশ হিসাবে হাঁটাহাঁটি করতে চান, তাদেরও উচিত ইফতারির অন্তত এক ঘণ্টা পরে হাঁটাহাঁটি করা। ”
”তবে লক্ষ্য রাখতে হবে, রোজার সময় বেশি ঘাম হয় বা বুক ধড়ফড় করে এমন কোন ব্যায়াম করা যাবে না।”
তিনি পরামর্শ দিচ্ছেন, গরমের সময় রোজা হওয়ার কারণে দিনের বেলায় কোন ব্যায়াম না করাই ভালো। তাহলে আর পানিশূন্যতার কোন ঝুঁকি তৈরি হবে না।
ফিটনেস প্লাস বাংলাদেশের একজন প্রশিক্ষক রাফি হাসান বলছেন, রমজানের সময় আমরা সবাইকে হালকা ব্যায়াম করার পরামর্শ দেই। যেমন হাত বা পায়ের হালকা ব্যায়াম, ইয়োগা জাতীয় ব্যায়াম ইত্যাদি।
”কেউ যদি ভারী ব্যায়াম, ওজন তোলা বা সাইক্লিং করতে চান, তাদের জন্য পরামর্শ দেবো ইফতারের পর এগুলো করার জন্য।”
তবে হাঁটাহাঁটি করার মতো ব্যায়াম যেকোনো সময়েই করা যেতে পারে বলে তিনি বলছেন। “তবে বিকালে না হেঁটে বরং সকালে সেহরির পরপরই হাঁটাহাঁটির কাজটি করে ফেলতে পারলে ভালো। বিশেষ করে ডায়াবেটিক রোগীরা বিকালে হাঁটবেন না, কারণ এ সময় রক্তে শর্করা অনেক কমে যায়।”

Create your website at WordPress.com
Get started